একটি উত্সর্গপত্র ও এক ভক্তের চিঠি

শামছুল হক রাসেল | ১২ জুন ২০১৫ | পড়া হয়েছে 768 বার

সত্য কথা বলতে কি সমরেশ মজুমদার আমাকে কোনো বই উত্সর্গ করবে সেটা স্বপ্নেও ভাবতে পারিনি। খবরটি যখন শুনলাম আনন্দে অনেকটাই নির্বাক হয়ে গিয়েছিলাম। চলতি বছর কলকাতা বইমেলায় তার ‘বুকের ভেতর বাংলাদেশ’ বইটি প্রকাশিত হয়। আমাদের পত্রিকার কলকাতা প্রতিনিধি বইটি কেনার পর চমকে ওঠেন। সঙ্গে সঙ্গে আমাকে ফোন করে বিষয়টি জানান। এর পরপরই ফোন করি সমরেশদাকে। তিনি বলে ওঠেন, ‘আহ্হা… আমার এই সারপ্রাইজটা কে নষ্ট করলো। চেয়েছিলাম ঢাকায় এসে তোমাকে বইটি দেবো।’ সম্প্রতি তিনি ঢাকা ঘুরে গেলেন। তার কাছ থেকে অটোগ্রাফসহ বইটি গ্রহণ করেছি। এই আনন্দ ভাষায় প্রকাশ করার মতো নয়। ভাবছি, আমি হয়তো একদিন থাকবো না, কিন্তু তার বইয়ের মাধ্যমে অর্থাত্ উত্সর্গের সঙ্গে শামছুল হক রাসেল নামটিও বেঁচে থাকবে। এমনিতে সমরেশ দা’র সাথে আমার কাজের সম্পর্ক বলতে লেখালেখি নিয়ে বিভিন্ন আলোচনা আর সাক্ষাত্কার। তবে আমার বই পড়ার নেশার ঘোরেই সমরেশ মজুমদার প্রিয় লেখক তালিকার অন্যতম সারিতে ছিলেন সবসময়। কিন্তু সেই কথা সমরেশ দা’ কিভাবে জানলেন জানা হয়নি।

এ নিয়ে কৌতুহলী বালকসূলভ কথাই তার কাছে জানতে চাই, কেন বাংলাদেশ নিয়ে লেখা গোটা উপন্যাস এখানে আমাকেই উত্সর্গ করলেন। সমরেশ দা জানালেন, ‘আমার এখানে অনেক বন্ধু-বান্ধব রয়েছে। কিন্তু কোনোভাবেই এই বইয়ের চার লাইন উত্সর্গপত্রে ওদের এতটা চমকে দিতে পারতাম না, যতটা তোমায় চমকে দিতে পেরেছি।’ সর্বশেষ কলকাতায় যাবার পর দাদার সাথে বিভিন্ন আড্ডায় অংশ নিয়েছি। পরে দেখলাম বইটির বিভিন্ন অনুসঙ্গে সেই প্রসঙ্গ নিয়েও লিখেছেন তিনি।

মন্তব্য করতে পারেন এখানে...

আরও লেখা

সব লেখা